নোয়াখালীর বার্তাঃ নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলার ধানশালিক ইউনিয়নে এক নারীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে তার স্বামীর বন্ধুর বিরুদ্ধে। এ সময় ওই নারীর ছোঁড়া মরিচের গুঁড়া ও দায়ের কোপে আহত হয়েছেন মানিক নামে ওই যুবক।

ঘটনার পর অভিযুক্ত যুবককে গ্রেপ্তার করে শুক্রবার দুপুরে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ। গ্রেপ্তার মানিক ধানশালিক ইউনিয়নের চরগুল্লাখালি গ্রামের আব্দুল হাইয়ের ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ওই গৃহবধূর স্বামী গাড়িচালক। তিনি চট্টগ্রামে থাকেন। বেশ কিছুদিন ধরে পারিবারিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে মনোমালিন্য চলছিল। মানিক ওই নারীকে চাচি বলে সম্বোধন করলেও তার স্বামীর সঙ্গে তার বন্ধুর সম্পর্ক ছিল। বন্ধুর অনুপস্থিতিতেও তাদের বাড়িতে যাতায়াত ছিল মানিকের।

স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে সুসম্পর্ক গড়ে দেওয়ার কথা বলে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় একটি তাবিজ নিয়ে ওই গৃহবধূর কাছে যায় মানিক। ঘরে বসে কথা বলার একপর্যায়ে মানিক গৃহবধূর মুখে বালিশ চাপা দিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে।

এ সময় নিজেকে রক্ষা করতে মানিকের চোখে মরিচের গুড়া নিক্ষেপ করে এবং দা দিয়ে কুপিয়ে জখম করেন ওই নারী।

চিৎকার শুনে স্থানীয় লোকজন ছুটে গেলে মানিক পালিয়ে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার বসুরহাটের একটি হাসপাতালে ভর্তি হন।

কবিরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মির্জা মোহাম্মদ হাছান বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ওই নারীর করা মামলার প্রেক্ষিতে মানিককে হাসপাতাল থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।